বড়দিনের গল্প

# ছোট গল্প

#দিয়ার সান্টা

বড়দিনের আগের দিন রাতে সান্তা আসে।সান্তা এসে 5 বছরের দিয়ার বালিশের পাশটাতে কত কিছু উপহার রেখে যায়।ক্যাডবেরী,টেডী,বারবি ডল,টুপি,বাঁশী আরও কত কি ! সান্তা আসে গভীর রাতে গরম জামা টকটকে লাল রঙের, ফোলা ফোলা উলের কোট  , ধবধবে সাদা পশমের পাড় দেওয়া, মাথায় লাল টুপি পরে তারা বেরোয় দিয়ার মতো মিষ্টি বাচ্চাদের উপহার দিতে ,পিঠে ঝোলা নিয়ে বরফ দেশ থেকে আসে স্লেজ গাড়ি চেপে।
বড়দিনের দিন পার্ক স্ট্রীট,নিউ মার্কেট ঘুরে বাবা মা কিনে দিত এত্ত কেক,বেলুন,ক্রিসমাস-ট্রি।খুব আনন্দে কাটত প্রতিবছর এই সময়টা।বাবা মা দিয়াকে তো সব দিক দিয়ে ভরিয়ে রেখেছিল।
বছর ঘরল।
দিয়া পুরনো স্মৃতি ঘাটতে বসল।
এমনি এক 24 শে ডিসেম্বর রাতে মা বাবা গাড়ি অ্যাক্সিডেন্টে ওকে ছেড়ে চলে গেছে।

বাবা বলতেন সান্টাকে নিয়ে স্লেজ টানবে ওরা সান্টার রেইনডিয়ার । কি মজা!!” ছোট্ট দিয়া হাততালি দিয়ে বলে উঠত।
ছোটবেলার স্মৃতি নদীতে ভেলা ভাসায় ছোট্ট দিয়া , তার ছোটবেলাতেও প্রথম সান্টাক্লসকে চেনা তার বাবার কাছে গল্পশুনে। সেই ইউনিকর্নের দিনগুলো, সেই পরী, সেই গাছ বুড়ো, সেই লালকমল নীলকমল, সেই ভূতের রাজার দিনগুলোতে ফিরে ফিরে যাওয়া । আজ সব হারিয়ে গেছে ..সব। একসময় ওরা খুব কাছের ছিলো, এখন তারা অনেক দূরে। এক আলোকবর্ষ ।বাবার কাছে আর যাওয়া হবে না। বাবা আর নতুন গল্পও শোনাবে না।
…‘মা বাবা যে কেন আকাশের তারা হয়ে গেল কে জানে?আমিও একদিন চুপি চুপি আকাশের তারা হয়ে যাব।’ আট বছরের দিয়া মনে মনে ভাবে।
মা বাবার সান্নিধ্য ভালবাসার অভাবে দিয়া যন্ত্রণায় দুঃখে ক্ষত বিক্ষত হয়েছে। অনাথ আশ্রমের বারান্দায় বসে দিয়া দেখছে ঝুপ্-ঝুপ্ করে শীতের সন্ধ্যা নামছে শহরের বুকে।কাল বড়দিন।শহর সেজে উঠবে আনন্দে।আজ মেঘ নেই।বিরাট আকাশের বুকে হাজার হাজার তারা ঝিক্-মিক্ করছে।দিয়ার মনের মধ্যে একটা বিষাদের ঠান্ডা স্রোত বয়ে যাচ্ছে যেন। ‘মা-মাগো বাবা তুমি কোথায়..? কোন্ তারার মাঝে লুকিয়ে আছো তুমি?আমি যদি তারা হয়ে যাই,তাহলে কি তোমায় ফিরে পাবো মা?জানিনা তো! তারার কাছে পৌঁছোবার রাস্তা চিনিনা যে!’
দিয়ার চোখের তারা তখন চিক্-চিক্ করছে। দু ফোঁটা জল গড়িয়ে পড়ল গাল বেয়ে।দূরে গীর্জায় ঘন্টাধ্বনি শোনা যাচ্ছে—–‘ ঢং ঢং ঢং—–।
কাল যে বড়োদিন দিয়া আজও তারাদের ভিড়ে সান্টা বাবার জন্য অপেক্ষা করে অনাথ আশ্রমের বারান্দায় বসে।।

#Anindita chaudhuri
( বড়দিনের গল্প)

Advertisements

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s